অ্যাডিলেডে ভারতের ইতিহাসে লজ্জার রেকর্ড গড়ল কোহলিরা

মাত্র ৩৬ রানেই গুটিয়ে গেল ভারতের ইনিংস। ভারতের ইতিহাসে সবচেয়ে কম রানে ইনিংস গুটিয়ে যাওয়া ইতিহাস রচনা হলো বিরাট কোহলির অধীনেই।

অ্যাডিলেডে দিবারাত্রির টেস্টের তৃতীয় দিন ৬২ রানে এগিয়ে থেকে ৯ উইকেট হাতে রেখে শুরু করেছিল কোহলির দল। 

ক্রিজে ছিলেন ওপেনার মায়াঙ্ক আগরওয়াল ও নাইটওয়াচম্যান যশপ্রীত বুমরা।  

নিজের প্রথম ওভার করতে এসেই প্যাট কামিন্সের বলে আউট হন নাইটওয়াচম্যান বুমরা। ১৭ বলে ২ রান করতে পেরেছেন এই ভারতীয় পেসার।

মায়াঙ্ককে সঙ্গ দিতে এর পরেই আসেন পূজারা। কামিন্সের বলে খুব দ্রুতই ফিরে যান তিনিও। খেলতে সক্ষম হন মাত্র ৮ বল। 

উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়ে শূন্যরানে সাজঘরে ফেরেন পূজারা।

এমন পরিস্থিতিতেও অবশ্য হতাশ হওয়ার কিছু ছিল না ভারত সমর্থকদের। কারণ ব্যাটিংয়ের অপেক্ষায় তখনও রয়েছে অধিনায়ক বিরাট কোহলি ও অজিঙ্কা রাহানের মতো ব্যাটসম্যানরা।

দ্রুত ২ উইকেট পড়ে যাওয়ার পর ব্যাট হাতে নামেন কোহলি।

দুর্দান্ত দুটি রেকর্ডের হাতছানির সামনে দাঁড়িয়েছিলেন তিনি। কিন্তু কোহলিকে তা করতে দেয়নি কামিন্স।

মাত্র ৪ রানেই কোহলিকে সাজঘরের পথ দেখান তিনি। 

একের পর এক উইকেট তুলে নেয়ার পর যেন দায়িত্ব হ্যাজেলহুডের হাতে ছাড়লেন কামিন্স।

প্রতিপক্ষকে ৩৬ রানে গুটিয়ে দেয়ার পথে সবচেয়ে বড় আঘাতটা হানেন ২৯ বছর বয়সী এই ডানহাতি পেসার। 

শূন্যরানে ফেরান অজিঙ্কা রাহানেকে।  এরপর এরপর হানুমা বিহারী, ঋদ্ধিমান সাহা ও রবীচন্দ্র অশ্বিনকে ফেরান তিনি।

মাত্র ৪ রানে হ্যাজেলহুড পূরণ করেন ক্যারিয়ারের অষ্টম ফাইফার। 

শেষপর্যন্ত তার বোলিং ফিগার দাঁড়ায় ৫-৩-৮-৫।  

এরপর ফের বল হাতে নেন কামিন্স।  তার বলে আউট না হলেও হাতে ব্যথা পেয়ে মাঠ ছাড়েন মোহাম্মদ সামি।  কামিন্সের বোলিং ফিগার ১০.২-৪-২১-৪।

অর্থাৎ কামিন্স-হ্যাজেলহুড তাণ্ডবে মাত্র ৩৬ রানে গুটিয়ে যায় ভারতের ইনিংস।

ভারতের টেস্ট ইতিহাসে সবচেয়ে কম রানে অলআউট হওয়ার রেকর্ড গড়ল বিরাট কোহলির দল।

এর আগের রেকর্ডটি ছিল ৪২ রানের।  ১৯৭৪ সালে লর্ডসে ইংল্যান্ডের কাছে ৪২ রানে অলআউট হয়েছিল ভারত। 

আজ অলআউট না হলেও দিন শেষে লজ্জার রেকর্ডেই নামটা উঠছে কোহলিদের। 
 
নিউজিল্যান্ডের রেকর্ডটা (২৬ রান) ভারত পেরিয়ে গেছে বটে, তবে ভারতের ইতিহাসের সবচেয়ে কম রানে অলআউট হওয়ার রেকর্ডটা পেরোতে পারলেন না কোহলিরা। 

Sharing is caring!