নয়াপল্টনে ছাত্রদলের মিছিলে অতর্কিত হামলার অভিযোগ

বিএনপির অঙ্গ সংগঠন ছাত্রদলের মিছিলে পুলিশের অতর্কিত হামলার অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার (১৭ জুন) বিকেলে নয়াপল্টন বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের অভিযোগ, সকালে ময়মনসিংহে ছাত্রদলের বিভাগীয় আলোচনা সভায় পুলিশ হামলায় চালায়। এর প্রতিবাদে ঢাকায় মিছিল বের করলে সেখানেও পুলিশ হামলা করে। এ ঘটনায় ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রশিদ হাবিব ও বর্তমান সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামলসহ সংগঠনের বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী আহত হন।

ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় ভাইস প্রেসিডেন্ট আশরাফুল আলম ফকির লিংকন ঢাকা পোস্টকে বলেন, নয়াপল্টন বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে আমরা দুই শতাধিক নেতাকর্মী প্রতিবাদ মিছিল বের করলে পুলিশ পেছন থেকে আমাদের ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। এ ঘটনায় আমাদের কয়েকজন নেতাকর্মী আহত হন।

তিনি বলেন, হামলার প্রতিবাদে পরে আমরা আবার মিছিল করেছি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মিছিলে পুলিশ হঠাৎ করে বাধা দিলে ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা অপ্রস্তুত অবস্থায় নয়াপল্টনে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এবং আশপাশের গলিতে ঢুকে পড়ে। পরে তারা আবার হাতে কয়েকটি লাঠি নিয়ে কার্যালয়ের সামনে মিছিল করে। তখন পুলিশ আর বাধা দেয়নি।

মিছিলে উপস্থিত ছিলেন ছাত্রদলের সহসভাপতি হাফিজুর রহমান হাফিজ, মামুন হাসান, ছাত্রদল ঢাকা মহানগর পূর্বের সভাপতি খন্দকার এনামুল হক এনাম, কেন্দ্রীয় নেতা আমিনুর রহমান আমিন, সাইফ মাহমুদ জুয়েল প্রমুখ।

পল্টন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু বক্কর সিদ্দিকী ঢাকা পোস্টকে বলেন, আজ হঠাৎ করে ছাত্রদলের কর্মীরা পল্টন এলাকায় রাস্তায় নেমে ভাঙচুর শুরু করে। তারা অতর্কিতভাবে পুলিশ বক্সে হামলা এবং গাড়িতে ভাঙচুর করে। এছাড়া তারা ব্যস্ত রাস্তায় বিক্ষোভ মিছিল করে। পরে পুলিশ জনগণের জানমালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ছাত্রদলের কর্মীদের রাস্তা থেকে সরিয়ে দেয়।

এ ঘটনায় কয়েকজনকে আটক হয়ে থাকতে পারে জানিয়ে এ পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, এ মুহূর্তে কয়জনকে আটক করা হয়েছে তা নিশ্চিত করে বলতে পারছি না। এ বিষয়ে বিস্তারিত পরে জানানো হবে।

Sharing is caring!