আন্দোলনে ব্যর্থ খসরুর ক্ষোভ জনগণের উপর

নানা ধরনের রোমান্টিক ও আওয়ামী লীগের সাথে আপোষ করা কর্মসূচী দিয়ে পিঠ বাঁচিয়ে চলা বিএনপির নেতারা যেন নিজেদের কোন দোষই খুঁজে পান না । এই যেমন দলটির সিনিয়র নেতা আমীর খসরুই নিজেদের ব্যররথতা ঢাকতে ক্ষোভ ঝাড়লেন জনগনের উপর।

ক্ষোভ ঝেড়ে আমীর খসরু বলেন, ‘আজকে কষ্ট হয় জনগণ জানতে চায়, বিএনপি আগামী নির্বাচনে অংশ নেবে কি নেবে না। এ মুহূর্তে যারা জানতে চায়, বিএনপি নির্বাচনে অংশ নেবে কি না, তারা কি চোখে দেখে না? তাদের কি বোধশক্তি নাই? তাদের যদি বোধশক্তি থেকে থাকে, তাহলে তাদের তো বুঝার কথা বাংলাদেশে কোনো নির্বাচন আছে কি না। নির্বাচন থাকলে তো অংশগ্রহণের প্রশ্ন আসবে। যেখানে নির্বাচনই নাই দেশে, সেখানে প্রশ্ন কিসের?

শনিবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক শোকসভা ও দোয়া মাহফিলে তিনি এসব কথা বলেন।

বিএনপির সাবেক মহাসচিব খোন্দকার দেলোয়ার হোসেন এবং স্থায়ী কমিটির সাবেক সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে অনুষ্ঠানের আয়োজন করে স্বাধীনতা অধিকার আন্দোলন।

তিনি আরও বলেন, ‘বিএনপি নির্বাচনে অংশ নেবে কি নেবে না, এটা তো প্রশ্ন করার দরকার নাই। জনগণ ভোট দিতে পারবে কি পারবে না, এটা প্রশ্ন করার দরকার আছে। সুতরাং বিষয়টি পরিষ্কার। অতএব এ প্রশ্ন যাতে আর কেউ না করে। আগামী নির্বাচন যদি হয়, তাহলে সেটা হতে হবে নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে। তাছাড়া নির্বাচন হবে না।’

এ সময় বিএনপি সঠিক পথে আছে মন্তব্য করে আমীর খসরু বলেন, ‘আমরা গণতন্ত্রের পক্ষে, আইনের শাসনের পক্ষে, গণমাধ্যমের স্বাধীনতার পক্ষে। সাংবিধানিক অধিকারের পক্ষে যারা আছে, আমরা আগামী নির্বাচনের জন্য ঐক্যবদ্ধ থাকব। আগামী দিনে নিরপেক্ষ সরকারের মাধ্যমে একটি অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের পক্ষে যারা থাকবেন, তাদের সঙ্গে বিএনপি থাকবে।’

Sharing is caring!