জামায়াত-পুলিশ সংঘর্ষে পাঁচ পুলিশ আহত

বেশ কয়েকদিন ধরেই জামায়াত-শিবির দেশের বিভিন্ন জায়গায় তাদের অবস্থানের জানান দিচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় আজ রাজশাহীর বাঘাতে ঝটিকা মিছিল করে দলটি। এসময় পুলিশের সাথে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে জামায়াত ও তাদের ছাত্র সংগঠন শিবিরের নেতা-কর্মীরা। এ ঘটনায় পাঁচ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে। আর ৭ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

বুধবার বিকেল ৪টার দিকে বাঘা মাজার গেটের সামনে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার পরে জামায়াত-শিবিরের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ মিছিল করেছে উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা।

আহতরা হলেন: বাঘা থানার উপ-সহকারী পুলিশ পরিদর্শক (এএসআই) আব্দুর রহিম, এএসআই মন্টু মিয়া, কনস্টেবল আব্দুল আহাদ, হারুনুর রশিদ ও প্রদীপ। তাদের উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিকেল ৪টার দিকে বাঘা মাজার গেট এলাকায় জামায়াত-শিবিরে নেতাকর্মীরা গোপন বৈঠক করছিলেন। খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে উপস্থিত হলে তারা মিছিল বের করে বাঘা বাজারের দিকে যেতে থাকে। এসময় পুলিশ মিছিলে বাধা দিলে তারা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল ও ককটেল নিক্ষেপ করে। এতে অন্তত ৫ পুলিশ সদস্য আহত হন। এরপর অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে মিছিল ছত্রভঙ্গ করে দিয়ে জামায়াত-শিবিরের ৭ জনকে আটক করে।

আটককৃতরা হলেন: উপজেলার আড়পাড়া গ্রামের রাজিব (৩০), হাবাসপুর গ্রামের শফিকুল (২৫), খায়ের হাট গ্রামের হাফিজুল (৪১), ঢাকা চন্দ্রগাথি গ্রামের সেকেন্দার আলী (৫৫), জোতরাঘর গ্রামের খোশবুর রহমান (২৫) জোতনশী গ্রামের আব্দুল মান্নাফ (৩০) ও চন্ডিপুর গ্রামের নাসির উদ্দিন (৪৯)।

এ বিষয়ে বাঘা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাজ্জাদ হোসেন জানান, নাশকতার উদ্দেশ্যে বাঘা মাজার এলাকায় জামায়াত-শিবির গোপন বৈঠক করছিল। খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে গেলে তারা মিছিল থেকে পুলিশের ওপর হামলা করে। এ সময় পুলিশ ৭ জনকে আটক করে। এ ঘটনায় ৫ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন।

Sharing is caring!