বিল গেটসের যৌন হয়রানি বিষয়ক নীতি: রিপোর্ট চান শেয়ারহোল্ডাররা

মাইক্রোসফটের কাছে কর্মক্ষেত্রে বিল গেটসের যৌন হয়রানি বিষয়ক নীতির কার্যকারিতা সম্পর্কে রিপোর্টে জানতে চেয়ে একটি প্রস্তাব উত্থাপন করেছেন শেয়ারহোল্ডার ও অধিকার বিষয়ক প্রতিষ্ঠান অর্জুনা ক্যাপিটাল।

জানা গেছে, নারী কর্মচারীদের সঙ্গে বিল গেটসের অসামঞ্জস্যপূর্ণ সম্পর্ক ও অন্যদের সঙ্গে যৌন হয়রানির অভিযোগের প্রেক্ষিতে তারা এ কাজ করেছে। তারা পরিচালনা পরিষদের কাছে বার্ষিক ভিত্তিতে একটি রিপোর্ট চেয়েছে।

এতে নির্বাহী- যেমন বিল গেটসের মতো ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগের তদন্ত রিপোর্ট থাকতে হবে। কর্মী ও নেতৃত্বের জবাবদিহিতা সম্পর্কে গৃহীত পদক্ষেপ সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য থাকতে হবে।

সাধারণত, নভেম্বরের শেষে বা ডিসেম্বরের শুরুতে শেয়ারহোল্ডারদের বার্ষিক মিটিং আয়োজন করে থাকে মাইক্রোসফট। অর্জুনা ক্যাপিটাল বলেছে, যৌন হয়রানি এবং লিঙ্গগত বৈষম্যের ফলে শেয়ারহোল্ডারদের মূল্যমান ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। তাই এসব বিষয়ে নিরপেক্ষ তদন্ত দাবি করছি মাইক্রোসফটের কাছে এবং একই সঙ্গে এসব ইস্যু স্বচ্ছতার সঙ্গে কিভাবে মোকাবিলা করা হচ্ছে তা জানতে চাই।

এতে আরও বলা হয়, এসব অভিযোগের কারণে উৎপাদনশীলতা কমে যাবে, প্রতিষ্ঠানে অনুপস্থিতি বেড়ে যাবে, অধিক হারে অসুস্থতাজনিত ছুটি বেড়ে যাবে। ফল হিসেবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে প্রতিষ্ঠান। এই শেয়ারহোল্ডার প্রতিষ্ঠানটির প্রস্তাবের বিষয়ে মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন মাইক্রোসফটের মুখপাত্র ফ্রাঙ্ক শ।

তবে এ সপ্তাহে ব্লুমবার্গ টেলিভশনকে মাইক্রোসফটের প্রেসিডেন্ট ব্রাড স্মিথ বলেছেন, বিল গেটস এখনো মাইক্রোসফটের উপদেষ্টা। ক্ষমতাবলে তিনি এখনো কিছু কর্মচারীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। যদি চুক্তি যথাযথভাবে রক্ষা করা যায় তাহলে তিনি দায়িত্বে অব্যাহত থাকবেন।

উল্লেখ্য, বিল গেটস এবং তার স্ত্রী মেলিন্ডা গেটস বিচ্ছেদের ঘোষণা দেয়ার পর থেকেই মাইক্রোসফটের নারী কর্মীদের সঙ্গে সাবেক এই নির্বাহী কর্মকর্তার অসংলগ্ন আচরণের বিষয়ে রিপোর্ট প্রকাশ হচ্ছে। এতে বলা হয়েছে, বিল গেটস যখন মাইক্রোসফটের পরিচালনা পরিষদে ছিলেন তখন ২০০০ সালে একজন নারী কর্মীর সঙ্গে তিনি প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলার চেষ্টা করেছিলেন। এ নিয়ে উত্থাপিত অভিযোগ ২০১৯ সালে পাওয়ার কথা স্বীকার করেছে মাইক্রোসফট।

Sharing is caring!