ভারতে ৪৫ হাজার মৃত্যু: রাষ্ট্রপতি শাসনের দাবি


ভারতে প্রাণঘাতী করোনা সংক্রমণের প্রকোপে চলতি এপ্রিলে এক মাসে ৪৫ হাজারেরও বেশি রোগীর মৃত্যু হয়েছে। দেশে ১ এপ্রিল মৃতের সংখ্যা ছিল ১ লাখ ৬২ হাজার ৯২৭। আজ ৩০ এপ্রিল মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২ লাখ ৮ হাজার ৩৩০। অর্থাৎ মাত্র এক মাসেই ৪৫ হাজার ৪০৩ জনের মৃত্যু হয়েছে।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সূত্রে প্রকাশ, গতকাল (বৃহস্পতিবার) সকাল ৮ টা থেকে আজ (শুক্রবার) সকাল ৮ টা পর্যন্ত ৩ লাখ ৮৬ হাজার ৪৫২ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। দেশে এ পর্যন্ত মোট সংক্রমিত হয়েছেন ১ কোটি ৮৭ লাখ ৬২ হাজার ৯৭৬ জন। সরকারি সূত্রে প্রকাশ, এ পর্যন্ত ১ কোটি ৫৩ লাখ ৮৪ হাজার ৪১৮ জন সুস্থ হয়েছেন।

অন্যদিকে, বর্তমানে ৩১ লাখ ৭০ হাজার ২২৮ জন সক্রিয় করোনা রোগী হাসপাতাল অথবা হোম আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন আছেন। গতকাল (বৃহস্পতিবার) সক্রিয় করোনা রোগীর সংখ্যা ছিল, ৩০ লাখ ৮৪ হাজার ৮১৪।

ভারতে সবচেয়ে বেশি করোনা আক্রান্ত হয়েছে মহারাষ্ট্রের মানুষজন। এখানে আজ ৬৬ হাজার ১৫৯ টি নয়া সংক্রমণের মধ্যদিয়ে মোট ৪৫ লাখ ৩৯ হাজার ৫৫৩ জন আক্রান্ত হলেন। রাজ্যটিতে ২৪ ঘণ্টায় ৭৭১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এনিয়ে সেখানে মোট ৬৭ হাজার ৯৮৫ জনের মৃত্যু হল।

পশ্চিমবঙ্গে গত ২৪ ঘণ্টায় ১৭ হাজার ৪০৩ টি নয়া সংক্রমণ এবং ৮৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে রাজ্যটিতে এ পর্যন্ত মোট ১১ হাজার ২৪৮ জনের মৃত্যু হল।

এদিকে, রাজধানী দিল্লিতে করোনা পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্য পরিসেবা বেহাল হওয়ায় সেখানে রাষ্ট্রপতি শাসনের দাবি জানিয়েছেন আম আদমি পার্টির বিধায়ক শোয়েব ইকবাল। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এক ভিডিও বার্তায় তিনি আক্ষেপ করে বলেন, ‘দিল্লির পরিস্থিতি দেখে আমার কান্না পাচ্ছে। হৃদয় যন্ত্রণায় ফেটে পড়ছে। কোনও অক্সিজেন নেই, ওষুধ নেই। আমার বন্ধু মৃত্যু শয্যায়। অক্সিজেন পায়নি, ভেন্টিলেটরের ব্যবস্থাও করা যায়নি তার জন্য। আমি এটাও জানি না যে কোথা থেকে তার জন্য রেমডিসিভির ওষুধ কিনতে পারব।’

তিনি বলেন, ‘একজন জননেতা হয়ে আজ আমি বিন্দুমাত্র গর্বিত নই বরং অত্যন্ত বিব্রত বোধ করছি কারণ এই করুণ পরিস্থিতিতে কাউকে এতটুকু সাহায্য করতে পারছি না! সরকারও আমাদের আর কোনও রকম সাহায্য করতে পারছে না। আমি ৬ বারের বিধায়ক অথচ আমার কথাও কেউ শুনছেন না।’

এই সমস্ত কারণেই দিল্লিবাসীকে বাঁচাতে দিল্লি হাইকোর্টের উদ্দেশ্যে রাষ্ট্রপতি শাসন জারির দাবি জানিয়েছেন বিধায়ক শোয়েব ইকবাল। তিনি বলেন, আমি চাই যে দিল্লি হাইকোর্ট অবিলম্বে এখানে রাষ্ট্রপতির শাসন আরোপ করুন, অন্যথায় মৃতদেহ রাস্তায় ছড়িয়ে থাকবে।

দিল্লির বিজেপি মুখপাত্র হরিশ খুরানা বিধায়ক শোয়েব ইকবালের দাবিকে সঠিক বলে মন্তব্য করে দিল্লির স্বাস্থ্য পরিসেবা বেহাল হওয়ার জন্য মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল সরকারকে দায়ী করেছেন।

এরআগে দিল্লি প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অনিল চৌধুরী দিল্লির স্বাস্থ্য পরিসেবা বেহাল হওয়ার অভিযোগে দিল্লিতে রাষ্ট্রপতি শাসন কার্যকর করার দাবি জানিয়েছিলেন

Sharing is caring!