‘ঈদের’ মতো ঢাকা ছাড়ছে মানুষ

সরকার ঘোষিত ‘সর্বাত্মক লকডাউন’ শুরু হবে ১৪ এপ্রিল। এই সময়ে বন্ধ থাকবে গণপরিবহনসহ অফিস, ব্যাংক ও অন্যান্য প্রতিষ্ঠান। এই ঘোষণার পর থেকেই ঢাকা ছেড়ে বিভিন্ন উপায়ে নিজ নিজ জেলার উদ্দেশে যেতে দেখা যায় মানুষকে। এমন ফেরা দেখে মনে হয় ঈদের ছুটিতে ঢাকা ছাড়ছে মানুষ।

সোমবার (১২ এপ্রিল) পাটুরিয়া ঘাটে দেখা যায়, বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। তবু ঘণ্টার পর ঘণ্টা নৌ-পথ পারাপারের অপেক্ষায় রয়েছে হাজারো যানবাহন ও যাত্রীরা। একদিকে রাজধানী ছেড়ে মানুষ গ্রামে যাচ্ছে অন্যদিকে পাটুরিয়ার জিরো পয়েন্ট এলাকায় ঢাকামুখী মানুষের ভিড় দেখা গেছে। ভাড়ায় চালিত মোটরসাইকেল, প্রাইভেটকার, কাভার্ডভ্যান ও অটোরিকশা এবং ভ্যানে কেউ ঘাটে আসছেন আবার কেউ ঢাকায় যাচ্ছেন।

সরেজমিনে আরিচা ঘাটে দেখা যায়, লঞ্চ চলাচল বন্ধ থাকায় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে স্পিডবোট ও ট্রলারে করে নগরবাড়ি, কাজিরহাট যাচ্ছে মানুষ। পাটুরিয়া ও আরিচাঘাটে স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না অনেকেই। কেউ কেউ ব্যবহার করলেও অধিকাংশের মুখে মাস্ক নেই। এ কারণে ঘাট এলাকায় করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি বাড়ছে।

বিআইডব্লিউটিসির আরিচা কার্যালয়ের উপ-মহাব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) জিল্লুর রহমান বলেন, লকডাউনের খবরে রবিবার সকাল থেকে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌ-পথে ঘরমুখো মানুষের চাপ বাড়তে থাকে। ঢাকা থেকে পাটুরিয়া ফেরিঘাট হয়ে দেশের প্রায় ২১ জেলার যানবাহন ও যাত্রী পারাপার হয়। করোনার পরিস্থিতি মোবাবিলার জন্য সরকার লকডাউন দিয়েছে। করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি নিয়ে হাজার হাজার যাত্রী আর যানবাহন পারাপার করতে হয় আমাদের। তিনি আরো বলেন, এই নৌ-পথে ১৭টি ফেরির মধ্যে ১৪টি চলছে।

Sharing is caring!