যুক্তরাষ্ট্রে তীব্র তাপদাহে জনজীবনে অস্বস্তি

যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় ৬ অঙ্গরাজ্য গত সোমবার থেকে শুরু হওয়া তাপদাহে বিপর্যস্ত অবস্থায় পড়েছে । এগুলো হলো ক্যালিফোর্নিয়া, টেক্সাস, নেভাডা, উটাহ, অ্যারিজোনা এবং কলোরাডোর কিছু অংশ।

ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যের প্রধান শহর লস অ্যাঞ্জেলসের আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, সোমবার থেকেই তাপমাত্রা বাড়ছে ক্যালিফোর্নিয়া ও টেক্সাসে। শুক্রবার এই দুই রাজ্যে তাপমাত্রা ছিল ৪৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসেরও বেশি। এছাড়া গত ছয়দিন এই ক্যালিফোর্নিয়া ও টেক্সাসসহ ৬ অঙ্গরাজ্যে প্রতিদিন তাপমাত্রা ছিল ৩৮-৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস বা তার কিছু বেশি।

বিবিসি জানায়, অ্যারিজোনা এবং ক্যালিফোর্নিয়ার বেশিরভাগ অংশজুড়ে এবং দক্ষিণাঞ্চলের নেভাডা ও উটাহ রাজ্যে চরম তাপমাত্রার সতর্কতা জারি রয়েছে।

ক্যালিফোর্নিয়ার বাসিন্দা ও একটি দাতব্য সংস্থার যোগাযোগ ব্যবস্থাপক এমিলি কির্কল্যান্ড বার্তাসংস্থা রয়টার্সকে বলেন, ‘ক্যালিফোর্নিয়ায় বহুবছর এমন তাপমাত্রা দেখা যায়নি। শুক্রবার আমি জরুরি কাজে বাড়ির বাইরে বের হয়েছিলাম। কিন্তু অতিরিক্ত গরমে অসুস্থ বোধ করায় ১০ মিনিটের মধ্যে বাসায় ফিরতে বাধ্য হয়েছি।’

ক্যালিফোর্নিয়ার গভর্নর গ্যাভিন নিউসম বলেছেন, জ্বালানির ওপর চাপ কমানো এবং জ্বালানি সক্ষমতা বাড়াতিই জরুরি অবস্থা জারির পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। এ জরুরি অবস্থা শনিবার ২৩:৫৯ টা (রোববার ০৬:৫৯ জিএমটি) পর্যন্ত বলবৎ থাকবে।

‘ক্যালিফোর্নিয়া ইন্ডিপেন্ডেন্ট সিস্টেম অপারেটর’ (আইএসও) রাজ্যের অধিকাংশ পাওয়ার গ্রিড নিয়ন্ত্রণ করে থাকে। তারাও মানুষজনকে অযথাই বেশি বিদ্যুৎ খরচ না করার অনুরোধ জানিয়েছে। আইএসও’র মতে, প্রচণ্ড গরমে বিদ্যুতের চাহিদা বেড়ে যাওয়ার সময়টিতেই বিদ্যুতের অপচয় কমানো জরুরি।

ক্যালিফোর্নিয়ার ডেথ ভ্যালি ন্যাশনাল পার্কে স্থাপিত থার্মোমিটারের পারদ বৃহস্পতিবার পৌঁছেছে ১৩০ ডিগ্রি ফারেনহাইটে (৫৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস)।

অ্যারিজোনা অঙ্গরাজ্যের রাজধানী ফনিক্সের বাসিন্দা হান্নাহ নাইট (২০) রয়টার্সকে বলেন, ‘এত গরম এখানে, যে আমাদের ঘরে থাকতেও কষ্ট হচ্ছে, বাইরেও বের হতে পারছি না।’তিনি আরও বলেন, ‘গরমের কারণে আমরা ডাইনিং রুমের পরিবর্তে লনে লাঞ্চ ও ডিনার করতাম। কিন্তু গত তিন দিন ধরে অতিরিক্ত তাপমাত্রার কারণে তাও বন্ধ আছে।’

এদিকে তাপদাহ চলার কারণে স্বাভাবিকভাবেই বিদ্যুতের চাহিদা বেড়েছে এই ছয়টি অঙ্গরাজ্যে; এবং অতিরিক্ত সেই চাহিদার যোগান দিতে গিয়ে রীতিমতো হিমশিম খাচ্ছে বিদ্যুৎ উৎপাদন প্রতিষ্ঠানগুলো। যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম বৃহৎ বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্যালিফোর্নিয়া পাওয়ার গ্রিড অপরেটরর্স এর গ্রাহকদের বিদ্যুৎ ব্যাবহারে সাশ্রয়ী হওয়ার আহ্বান জানিয়ে শুক্রবার সতর্কবার্তা দিয়েছে।

সতর্কবার্তায় বলা হয়েছে, সন্ধ্যা ও রাতের বেলায় বাসা-বাড়ি এলাকায় বিদ্যুতের চাহিদা বেশি থাকে। তাই দিনের বেলায় গ্রাহকদের বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয়ী হওয়ার আহ্বান জানানো হচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় আবহাওয়া দফতরের বিশেষজ্ঞ বব ওরাভেক সাম্প্রতিক এই তাপদাহের প্রসঙ্গে বলেন, ‘প্রতিবছরই এই সময় যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে উচ্চতাপমাত্রা থাকে। বৃষ্টির প্রভাবে তা নেমেও যায়। চলতি বছর এখনও বৃষ্টি হয়নি ওই অঞ্চলে, তাই তাপদাহ দেখা দিয়েছে। সামনের সপ্তাহ থেকে এই তাপমাত্রা ধীরে ধীরে নেমে যাবে।’

ছয় রাজ্যের বাসিন্দাদের উদ্দেশে ওরাভেক বলেন, ‘তাপদাহ উপদ্রুত রাজ্যগুলোর বাসিন্দাদের বলছি, একান্ত প্রয়োজনছাড়া বাড়ির বাইরে বের হবেন না, প্রচুর পানি পান করবেন ,যতক্ষণ সম্ভব ছায়াযুক্ত স্থানে থাকবেন। শিশুদের ওপর বিশেষভাবে খেয়াল রাখবেন।’সূত্র: রয়টার্স।

Sharing is caring!