ভিজিএফ চাওয়ায় পা ভেঙ্গে দিলো মেম্বারের লোকেরা

অটো রিক্সা চালাতেন মহারাজ। গরীবও ছিলেন। এ কারণে স্ত্রীর জন্য ‘দুস্থ মহিলা উন্নয়ন কর্মসূচি-ভিজিডি’ কার্ড চেয়েছিলেন। কিন্তু পিরোজপুরের কাউখালীতে স্থানীয় মেম্বারের লোকজন সেই ব্যক্তির পা ভেঙে দিয়েছে। তিনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন আছেন। গত সোমবার উপজেলার শিয়ালকাঠী ইউনিয়নের সংকরপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গছে, সম্প্রতি নিজের স্ত্রীর জন্য স্থানীয় মেম্বার সাকায়েত হোসেনের কাছে একাধিকবার একটি ভিজিডি কার্ড চান মহারাজ। এক পর্যায়ে কার্ড না পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) কাছে অভিযোগ করেন তিনি।

অভিযোগে মহারাজ উল্লেখ করেন, এলাকার হুমায়ুন, শহিদ আকন, আ. সালামসহ ধনী ব্যক্তির স্ত্রীদের নামে ভিজিডি কার্ড করা হয়েছে। বিষয়টি সরকারি বিধিবিধান পরিপন্থি বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

এরপর গত সোমবার বিকালে মহারাজ অটোকশা নিয়া বাড়ি থেকে কাউখালী আসছিলেন। পথে শংকরপুর এলাকায় সাকায়েত হোসেন মেম্বারের লোক ইয়াসিন টিটু খানসহ ৩/৪ জনে তার পথরোধ করে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে পিটিয়ে জখম করেন। এতে তার পা ভেঙে যায়। পরে গুরুতর অবস্থায় তাকে কাউখালী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

এ ঘটনায় তিনজনকে আসামি করে কাউখালী থানায় একটি মামলা হয়েছে।

এ ব্যাপারে সাকায়েত হোসেন জানান, মহারাজকে মারধরের সঙ্গে জড়িত আমাদের কোনো লোক নেই।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা রেজাউল কবির রাজিব জানান, আমরা আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চালাচ্ছি।

Sharing is caring!