কবরীর মৃত্যুতে শামীম ওসমানের মিথ্যাচার ভরা বক্তব্য

বরেণ্য অভিনেত্রী ও সাবেক সংসদ সদস্য সারাহ বেগম কবরী ও নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি শামীম ওসমানের ছিল দা কুমড়ো সম্পর্ক। এ সম্পর্কের কথা সকলেই জানে। কিন্তু কবরীর মৃত্যুর পর শামীম ওসমান বড় মিথ্যাচার করলেন বলে মনে করছেন স্থানীয় লোকজন ও অনেকে।

কবরীর মৃত্যুর সংবাদ পেয়ে শামীম ওসমান শোক প্রকাশ করেন এবং জানান, তাকে নাকী কয়েক মাস আগে কবরী ফোন করেছিল এবং তাকে বাসায় যেতেও বলেছিল। কিন্তু খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সংসদ সদস্য হওয়ার পর শামীমের সঙ্গে দা কুমড়ো সম্পর্ক হয়ে যায়। এমনকি শামীমকে নানাভাবে চপেটাঘাতও করেন নায়িকা করবী। এসব নিয়ে ক্ষোভে ছিলেন শামীম। কিন্তু তার মৃত্যুতে হঠাৎ শামীমের শোক ও এমন বক্তব্যে নারায়নগঞ্জবাসী অবাক ও বিস্মিত হয়েছেন। কবরীর অসুস্থতার কথা শুনে নারায়নগঞ্জের ত্রাস শামীম নাকি তার জন্য নামাজে দোয়াও করেছেন !

১৭ এপ্রিল, শুক্রবার শামীম ওসমান দাবি করে বলেছেন, সারাহ বেগম কবরী একজন কিংবদন্তি অভিনেত্রী ছিলেন। নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্যও ছিলেন। মহান মুক্তিযুদ্ধে তাঁর ব্যাপক ভূমিকা ছিল। সম্পর্কে তিনি আমার চাচী ছিলেন। গত ২-৩ মাস আগে ওনার (কবরী) সঙ্গে আমার কথা হয়েছিল। তিনি বলেছিলেন, শামীম বাসায় আসো। তোমার সঙ্গে আমার কথা আছে। আমি বলেছি, চাচী আসবো। অনেক কথা হয়েছিল সেদিন আমাদের মধ্যে। কষ্টের বিষয়, আমি কথা দিয়েও কথা রাখতে পারিনি। কোভিডের কারণে আমার আর যাওয়া হয়নি চাচীর বাসায়। তাই শেষবারের মতো দেখাটাও হলো না চাচীর সঙ্গে। তিনি অসুস্থ থাকা অবস্থায় আমি নামাজ পড়ে ওনার জন্য দোয়া করেছি। আমি অত্যন্ত মর্মাহত তাঁর মৃত্যুতে। চাচীর জন্য আমি সবার কাছে দোয়া প্রার্থনা করছি। মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামিন কবরী চাচীকে জান্নাতুল ফেরদাউস নসীব করুক।

প্রসঙ্গত, করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়ে গতকাল শুক্রবার রাত ১২টা ২০ মিনিটে ঢাকার শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন কবরী।

Sharing is caring!