সমকামীদের সমর্থন করলেও শাস্তি হচ্ছে না নয়ারের

ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপের প্রথম দুই ম্যাচে হাতে সমকামীদের প্রতি সমর্থন জানাতে প্রাইড বাহুবন্ধনী পরেছিলেন জার্মানির অধিনায়ক ও গোলরক্ষক মানুয়েল নয়ার৷

বিষয়টির তদন্ত করে উয়েফা বলেছে, এর জন্য নয়ার কিংবা জার্মান ফুটবল ফেডারেশনকে শাস্তি পেতে হবে না৷

উয়েফার নিয়ম অনুযায়ী ‘রাজনৈতিক প্রতীক’ নির্দেশকারী কিছু পরা বা প্রদর্শন করা শাস্তিযোগ্য অপরাধ৷ এর দায়ে খেলোয়াড় ও তার ফুটবল সংস্থাকে জরিমানা করা হতে পারে৷

নয়ারের প্রাইড বাহুবন্ধনী এই নিয়মের মধ্যে পড়ে কিনা তা নিয়ে তদন্ত শুরু হয়েছিল৷ পরে উয়েফা জানায় যে, এই বাহুবন্ধনী আসলে ‘বৈচিত্র্যের প্রতীক এবং এটি ভালো কারণে পরা হয়েছে’৷ সেজন্য নয়ার বা জার্মান ফুটবল ফেডারেশনকে কোনো শাস্তি দেয়া হবেনা৷

এদিকে, নয়ারের এমন বাহুবন্ধনী পরার সমালোচনা করে টুইট করেছিলেন জার্মানির চরম ডানপন্থি দল এএফডির একজন রাজ্য সাংসদ উভে ইয়োঙ্গে৷ সাবেক এই সেনা কর্মকর্তা ঐ বাহুবন্ধনীকে ‘এফ*****’ আর্মব্যান্ড বলে আখ্যায়িত করেছিলেন৷ পরে সমালোচনার মুখে ক্ষমা চেয়ে তিনি সেটি মুছে ফেলেন৷ এএফডির কো-লিডার আলিস ভাইডেল, যিনি নিজেও একজন সমকামী, ঐ টুইটের সমালোচনা করেছিলেন৷

এএফডির আরেক রাজনীতিবিদ ও বুন্ডেসটাগের সাংসদ গেওর্গ পাজদেরস্কিও নয়ারের প্রাইড বাহুবন্ধনী পরার ঘটনা নিয়ে তাচ্ছিল্য করেছেন৷

এদিকে বুধবার মিউনিখে হাঙ্গেরির বিরুদ্ধে তৃতীয় ম্যাচ খেলবে জার্মানি৷ সেই সময় হাঙ্গেরির সমকামীদের প্রতি সমর্থন জানাতে স্টেডিয়ামে রংধনু রং প্রদর্শনের দাবি করা হয়েছে৷

হাঙ্গেরিতে সম্প্রতি পাস হওয়া এক আইনে বলা হয়েছে, কোনো কোম্পানির বিজ্ঞাপনে সমকামীদের অধিকারের পক্ষে কিছু বলা যাবেনা৷ সমকামীদের সাধারণ মানুষ হিসেবেও তুলে ধরা যাবেনা৷ এছাড়া ঐ আইনে এলজিবিটি অধিকার সম্পর্কে অপ্রাপ্তবয়স্কদের শিক্ষাদানও অবৈধ করা হয়েছে৷

Sharing is caring!