র‍্যাবের জন্য কোন ভালো সংবাদ নেই

গেল তিন মাসে র‌্যাবের কর্মকাণ্ডে উন্নতি দেখতে পেয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। তবে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার বিষয়টি জটিল ও কঠিন। তাই এখনই উঠছে না। এমনটা জানিয়েছেন সফররত মার্কিন আন্ডার সেক্রেটারি ভিক্টোরিয়া নুল্যান্ড।

রবিবার সকাল ১১টায় রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেনের সঙ্গে বাংলাদেশ-যুক্তরাষ্ট্র অষ্টম অংশীদারিত্ব সংলাপের পর এ কথা জানান তিনি। সংলাপে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে র‌্যাবের অগ্রগতির নথিপত্র যুক্তরাষ্ট্রকে দেয়া হয়। তবে, বিষয়টি নিয়ে আরো আলোচনা করতে চায় যুক্তরাষ্ট্র।

বৈঠকে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে বলা হয়, র‌্যাবের ওপর যে নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে তা নিয়ে উদ্বিগ্ন বাংলাদেশ। এতে জঙ্গি তৎপরতা বাড়তে পারে। এছাড়াও, সংলাপে নিরাপত্তা সহযোগিতা, বাণিজ্য, করোনা পরিস্থিতি এবং রোহিঙ্গা ইস্যুতে আলোচনা হয়েছে।

যৌথ সংবাদ সম্মেলনে পররাষ্ট্রসচিব মাসুদ বিন মোমেন জানান, আমরা সম্প্রতি র‌্যাবের ওপর যুক্তরাষ্ট্রের দেয়া নিষেধাজ্ঞা নিয়ে গভীর উদ্বেগের কথা তুলে ধরেছি। পাশাপাশি এটাও বলেছি যে, র‌্যাবের ওপর এই নিষেধাজ্ঞা সন্ত্রাসবাদ দমনে কতটা চ্যালেঞ্জ হবে। র‌্যাবের সাম্প্রতিক কর্মকাণ্ডের বিষয়ে সমস্ত তথ্য যুক্তরাষ্ট্রকে দিয়েছি। এ নিয়ে নানা আলোচনা চালিয়ে যাব।

যথেষ্ট উদ্বেগ ছিল বলেই যুক্তরাষ্ট্র র‌্যাবের প্রতি নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে উল্লেখ করে মার্কিন আন্ডার সেক্রেটারি ভিক্টোরিয়া নুল্যান্ড বলেন, র‌্যাবের বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড ও গুম নিয়ে উদ্বিগ্ন ছিলাম আমরা। গত তিন মাসে কিছুটা উন্নতি দেখতে পেয়েছি, তবে বিষয়টি এখনও জটিল এবং কঠিন।

এ সময় রাশিয়া-ইউক্রেন ইস্যুতে মানবাধিকারের পক্ষে বাংলাদেশকে কাজ করার আহ্বান জানান ভিক্টোরিয়া নুল্যান্ড। তিনি বলেন, রাশিয়া যা করছে তা বিশ্বশান্তির জন্য হুমকি। এছাড়া জিসোমিয়া বা অস্ত্র বিক্রির চুক্তি নিয়েও আলোচনার কথা জানান ভিক্টোরিয়া নুল্যান্ড।

Sharing is caring!