ফেব্রুয়ারিতে প্রবাসী আয়ে হোঁচট

ফেব্রুয়ারিতে ১৪৯ কোটি ৬০ লাখ ডলার দেশে পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা। যা টাকার হিসাবে (এক ডলার ৮৬ টাকা ধরে) ১২ হাজার ৮৬৫ কোটি টাকা। যা এর আগের ২১ মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন। বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য বলছে, মাসের ব্যবধানে দেশে রেমিট্যান্স প্রবাহ কমলো প্রায় ২১ কোটি ডলার। প্রবাসী আয়ে সরকারের দেয়া প্রণোদনা শূন্য দশমিক পাঁচ শূন্য শতাংশ বাড়ানোর দ্বিতীয় মাসেই কমলো এই খাতের অর্থ প্রবাহ। এর জন্য হুন্ডির মতো অবৈধ পথে অর্থ প্রবাহকেই দুষছেন বিশ্লেষকরা।

আগের মাস জানুয়ারিতে ১৭০ কোটি ৪৩ লাখ ডলার বা ১৪ হাজার ৬০০ কোটি টাকা পাঠালেও সদ্যবিদায়ী ফেব্রুয়ারি মাসে ২১ কোটি ডলার বা এক হাজার ৭৩৪ কোটি টাকা কম এসেছে।

প্রতিবেদনের তথ্য বলছে, ফেব্রুয়ারি মাসে ব্যাংকের মাধ্যমে প্রবাসীরা দেশে ১৪৯ কোটি ৬১ লাখ (১.৪৯ বিলিয়ন) ডলার রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন। প্রবাসী আয়ের এ অংক গত বছরের ফেব্রুয়ারির চেয়ে ২৮ কোটি ৪৫ লাখ ডলার বা ১৫ দশমিক ৯৭ শতাংশ কম। গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে রেমিট্যান্স এসেছিল ১৭৮ কোটি ৬ লাখ ডলার। শুধু তাই নয়, ফেব্রুয়ারির রেমিট্যান্সের এ পরিমাণ গত ২১ মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন।

এর আগে ২০২০ সালের এপ্রিল মাসে দেশে ১০৯ কোটি ডলার (সর্বনিম্ন) রেমিট্যান্স এসেছিল।

খাত সংশ্লিষ্টরা বল‌ছেন, কোভিডের কারণে প্রবাসীরা এক ধরনের অনিশ্চয়তা থেকে অনেকে জমানো টাকা দেশে পাঠিয়েছিলেন। কেউ চাকরি হারিয়ে অনেকে ব্যবসা বন্ধ করে সব অর্থ পাঠিয়ে দেশে ফিরেছেন।

আরও পড়ুন: রাশিয়ার মুদ্রায় চেয়ে এখন টাকার দাম বেশি

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ১ জুলাই থেকে প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্সে ২ শতাংশ হারে প্রণোদনা দিচ্ছে সরকার। অর্থাৎ কোনো প্রবাসী ১০০ টাকা দেশে পাঠালে তার সঙ্গে আরও ২ টাকা যোগ করে মোট ১০২ টাকা পাচ্ছেন সুবিধাভোগী।

Sharing is caring!