কান্দাহার ছেড়ে পালাচ্ছেন লোকজন !

নাগরিক ডেস্ক:
গত সপ্তাহে দুর মোহাম্মদের ভাইপোকে তুলে নিয়ে যায় তালেবান। অপরাধ তিনি আফগান পুলিশ বাহিনীতে ছিলেন। চার দিন পরও তার খোঁজ মেলেনি। দুর মোহাম্মদ জানতে পেরেছেন, তার ভাইপোকে প্রকাশ্য রাস্তায় হত্যা করা হয়েছে। এরপর ৪২ বছরের দুর সারা জীবন কান্দাহার ছেড়ে কোথাও না গেলেও এখন পালানোর পরিকল্পনা করছেন।

শুধু দুর মোহাম্মদ নয় কান্দাহারের হাজার হাজার মানুষ তাদের বাড়িঘর ছেড়ে জীবন বাঁচাতে অন্যত্র পালিয়ে যাচ্ছেন। আর এখনো কাবুল যাওয়া যাচ্ছে বিমানে। ফলে অনেকে সেই সুযোগের সদ্ব্যবহার করছেন। কারণ স্থলপথ বন্ধ। গোটা কান্দাহার ঘিরে ফেলেছে তালেবান।

স্থানীয়রা বলছেন, বাচ্চাদের স্কুলে পাঠানো যাচ্ছে না। দোকানপাট অধিকাংশ সময় বন্ধ। খুললেও তারা যেতে ভয় পাচ্ছেন। কারণ, গোটা সীমানা জুড়ে লড়াই চলছে। শহরের প্রাণকেন্দ্রে তালেবান একটি গুরুত্বপূর্ণ সরকারি ভবনও দখল করেছে বলে শোনা গেছে।

সম্প্রতি মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস ওয়াচের এক রিপোর্টে বলা হয়েছে, তালেবান সাধারণ মানুষকে আক্রমণ করছে। প্রকাশ্য রাস্তায় তাদের হত্যা করা হচ্ছে। এখনি এই ঘটনা বন্ধ হওয়া দরকার। বন্ধ না হলে সাধারণ মানুষ আরও বড় বিপদের মুখে পড়বে।

তাদের বক্তব্য, সরকারি কর্মী অথবা সরকারের কোনো কাজের সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিদের বাড়িতে ঢুকে তল্লাশি চালাচ্ছে তালেবান। তুলে নিয়ে হত্যা করা হচ্ছে। জাতিসংঘও সম্প্রতি এ বিষয়ে এক বিবৃতিতে, সব পক্ষকেই মানবাধিকারের কথা মাথায় রাখতে বলেছে।

তালেবান অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছে, যাবতীয় মানবাধিকার মেনেই তারা লড়াই করছে। কান্দাহারে সাংবাদিকদের একটি দল নিয়ে গিয়ে তারা পরিস্থিতি দেখাবে বলে জানিয়েছেন তালেবান মুখপাত্র। তার দাবি, ইসলামের আইন মেনেই তারা কান্দাহারে লড়াই করছেন।

এদিকে বেশ কয়েকজন সাংবাদিককে কান্দাহারে আটক করেছে আফগান সরকার। অভিযোগ টেলিভিশন ও রেডিওর এসব সাংবাদিকরা প্রোপাগান্ডা ছড়াতে গিয়েছিলেন। অ্যামনেস্টি দ্রুত ওই সাংবাদিকদের মুক্ত করে দেওয়ার ব্যবস্থা করতে বলেছে। বিভিন্ন মানবাধিকার সংগঠন সাংবাদিকদের ছাড়ার ব্যাপারে সরকারের ওপর চাপ সৃষ্টি করছে।

Sharing is caring!