বাংলাদেশিরা রাশিয়ার পক্ষে অভিযানে যেতে চায়

অনেক বাংলাদেশি রাশিয়ার অভিযানে স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে যোগ দিতে চায়। এমনটাই দাবি করেছে ঢাকাস্থ রুশ দূতাবাস। বৃহস্পতিবার (৭ এপ্রিল) রুশ দূতাবাসের ফেসবুক পেজে প্রকাশিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা বলা হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে যোগ দিতে আগ্রহীদের অসংখ্য চিঠি পেয়েছে দূতাবাস। দূতাবাস জানায়, পরিকল্পনা অনুযায়ী তাদের বিশেষ অভিযান চলছে। বাংলাদেশি স্বেচ্ছাসেবীদের এতে যোগ দেয়ার প্রয়োজন নেই বলেও সেখানে উল্লেখ করা হয়।

এর আগে ‘রাশিয়ার বিশেষ সামরিক অভিযানে যোগ দিতে আগ্রহী বাংলাদেশি স্বেচ্ছাসেবীদের প্রসঙ্গে’ শীর্ষক ওই বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে ঢাকাস্থ রুশ দূতাবাস।

দূতাবাসের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বন্ধুপ্রতীম গণপ্রজাতন্ত্রী দোনেতস্ক এবং লুগানস্ককে সাহায্য করার পাশাপাশি ইউক্রেনের রুশভাষী জনগোষ্ঠীকে রক্ষা করতে গত ২৪ ফেব্রুয়ারি মস্কো বিশেষ সামরিক অভিযান শুরু করে। গত ১১ মার্চ রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন রাশিয়ার পক্ষে অভিযানে যোগ দিতে ইচ্ছুক বিদেশি স্বেচ্ছাসেবকদের সহায়তা করার জন্য রুশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শোইগুর প্রস্তাব অনুমোদন করেন।

ঢাকাস্থ রুশ দূতাবাস আরও জানায়, ‘ইউক্রেন এবং দনবাসের মুক্তি আন্দোলনে অবৈতনিক ভূমিকা রাখতে আগ্রহী বাংলাদেশিদের কাছ থেকে অসংখ্য চিঠি পেয়েছে বাংলাদেশে রাশিয়ার দূতাবাস। এটা আনন্দের বিষয় যে, অনেক বাংলাদেশি পূর্ব ইউরোপে ন্যাটোকে প্রত্যাখ্যান এবং ইউক্রেনে নব্য-নাৎসিবাদের অবসান ঘটাতে রাশিয়ান সরকারের ন্যায়সঙ্গত আকাঙ্ক্ষাকে স্বীকার করে। আমরা বাংলাদেশিদের এই মহৎ তাগিদকে সাধুবাদ জানাই।’

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, রাশিয়ার সেনাবাহিনী সফলভাবে নির্ধারিত লক্ষ্য এবং উদ্দেশ্য অর্জনের সঙ্গে পরিকল্পনা অনুযায়ী বিশেষ সামরিক অভিযান চালাচ্ছে। তাই বাংলাদেশ থেকে স্বেচ্ছাসেবীদের সেই অভিযানে যোগ দেয়ার কোনো প্রয়োজন নেই।

Sharing is caring!