সাভার থেকে তুলে নিয়ে যাওয়া চিকিৎসকের সন্ধান মেলেনি

আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য পরিচয় দিয়ে ঢাকার সাভার থেকে এক চিকিৎসককে তুলে নিয়ে যাওয়ার ঘটনায় তিন দিন অতিবাহিত হলেও পুলিশ তার কোন সন্ধান দিতে পারেনি। এ ঘটনায় ভুক্তভোগীর পরিবারের পক্ষ থেকে সাভার মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে।

অপহৃত ওই চিকিৎসকের নাম ডা. এস. আর. নজরুল। তিনি সাভার পৌর এলাকার বাজার রোড মহল্লায় নব দিগন্ত ডায়াগনস্টিক সেন্টার ও বি. টি. এফ মেডিকেল ইনস্টিটিউট নামে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান পরিচালনার দায়িত্বে ছিলেন।

নিখোঁজ নজরুলের স্ত্রী কুলসুম আক্তার মঙ্গলবার অভিযোগ করেন, গত শনিবার রাত ৯ টার দিকে ৭ থেকে ৮ জন সাদা পোশাকের লোক আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পরিচয় দিয়ে বাজার রোডের দিগন্ত ডায়াগনস্টিক সেন্টার ও বি. টি. এফ মেডিকেল ইনস্টিটিউট থেকে নজরুলকে তুলে নিয়ে যায়।

কুলসুম আক্তার বলেন, খবর পেয়ে ওই দিন রাতেই ঘটনাটি জানিয়ে সাভার মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করি। দায়িত্বপ্রাপ্ত ডিউটি অফিসার মো. হাবিব উল্লা অভিযোগটি আমলে না নিয়ে বলেন, আপনার স্বামীকে কে বা কারা তুলে নিয়ে গেছে নিশ্চিত হয়ে তারপর থানায় আসেন। তাদের বিষয়ে কোন কিছু না জানলে আমরা কি করব? পরদিন থানায় ঘোরাফেরা করেও কোন ফল পাইনি। ঘটনার একদিন পর রবিবার সকালে এ ঘটনায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়।

জানতে চাইলে সাভার মডেল থানার উপপরিদর্শক হাবিব উল্লা বলেন, অপহরণের অভিযোগ নিয়ে এক নারী রাত এগারোটার দিকে থানায় এসেছিল। অভিযোগের বর্ণনা পড়ে ঘটনাস্থলে দ্রুত একটি মোবাইল টিম পাঠানো হয়। ভুক্তভোগীর স্বামীকে কে বা কারা তুলে নিয়ে গেছে সেটা জেনে থানায় আসাতে বলার বিষয়ে জানতে চাইলে হাবিব উল্লা বলেন, তার অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা।

জিডির তদন্ত কর্মকর্তা সাভার মডেল থানার উপপরিদর্শক আব্দুল হক বলেন, রবিবার জিডি করা হলেও আমি হাতে পেয়েছি সোমবার। এর মধ্যে আমরা ওই হাসপাতালের আশপাশের বেশ কিছু সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করেছি। ফুটেজগুলো পর্যালোচনা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সাভার মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী মাঈনুল ইসলাম বলেন, নিখোঁজের ঘটনায় ভুক্তভোগীর পরিবারের পক্ষ থেকে একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে। পুলিশের পক্ষ থেকে তাকে উদ্ধারে সর্বোচ্চ চেষ্টা চালানো হচ্ছে। আশা করি অতিদ্রুত তাকে উদ্ধার করতে সক্ষম হব।

Sharing is caring!