উন্নয়নের ‘গল্পের’ মাঝেই অভাবে যুবকের আত্মহত্যা

প্রধানমন্ত্রী থেকে আওয়ামী লীগের পাতিনেতা সবার মুখে শুধু উন্নয়নের গল্প আর জিডিপির গল্প। কিন্তু আদোতে দেশের মানুষ দব্যমূল্যের উদ্ধ্রগতি থেকে শুরু করে নানা সমস্যা জর্জরিত। মধ্যবিত্তরা আছে সবচেয়ে বিপদে। তবুও থামছে না সরকারের উন্নয়নের বুলি। আর তাদের এই বুলি শুনতে শুনতেই অভাবের তাড়নায় এক যুবক আত্মহত্যা করেছে।

রাজধানীর মুগদা থানার ওয়াসা গলিতে অভাবের কারণে সংসার চালাতে না পারায় মো. ফাহিম (২৫) নামে এক যুবক গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। শনিবার রাতে তার মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের মর্গে পাঠায় পুলিশ।

বিষয়টি নিশ্চিত করে মুগদা থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আকরাম বলেন, আমরা খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যাই। সেখানে গিয়ে তার গলায় ফাঁস দেওয়া মরদেহ উদ্ধার করে গভীর রাতে ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে পাঠাই।

তিনি বলেন, সে আইসিটিতে লেবার হিসেবে কাজ করত। তার আর্থিক অবস্থা খুবই খারাপ ছিল। সে তার শ্বশুর বাড়িতে থাকত। রাতে এসে সে সবার অগোচরে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।

এসআই আকরাম বলেন, তার বাসায় একটি ড্রাম ও একটি বেড ছাড়া কিছুই নেই। অভাব-অনটনের কারণে সে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি। তারপরও মৃত্যুর সঠিক কারণ নির্ধারণে ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।

এ ঘটনায় নিহত ফাহিমের মা সাইয়েদা আকতার বাদী হয়ে একটি অপমৃত্যু মামলা (মামলা নং-৬) দায়ের করেছেন। তার বাড়ি নোয়াখালী জেলার কোম্পানীগঞ্জ থানার। তার বাবার নাম আজিজুল করিম।

Sharing is caring!